0

plane hijacking: বিমান ছিনতাইয়ের ভুয়ো হুমকি, এই প্রথম যাবজ্জীবন – life term for fake threat of plane hijacking


২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবরের ওই মামলার রায় ঘোষণা করতে গিয়ে বিশেষ আদালতের বিচারক এন কে দাভে মঙ্গলবার বলেন, ‘জরিমানা থেকে প্রাপ্ত অর্থ সংশ্লিষ্ট বিমানের কর্মী এবং যাত্রীদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে। পাইলট এবং কো-পাইলট ১ লক্ষ, বিমানসেবিকারা ৫০ হাজার এবং যাত্রীরা ২৫ হাজার টাকা করে পাবেন।’

EiSamay.Com | Updated:

জেয় এয়ারওয়েজ

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: বান্ধবীকে ফেরানোর জন্য বিমান ছিনতাইয়ের হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। সেই অপরাধে মুম্বইয়ের ব্যবসায়ী বিরজু সাল্লাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং পাঁচ কোটি টাকা জরিমানার সাজা শোনাল বিশেষ এনআইএ আদালত। বিমান ছিনতাই প্রতিরোধ আইনে দেশে প্রথম সাজাপ্রাপ্ত হলেন বিরজু।

২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবরের ওই মামলার রায় ঘোষণা করতে গিয়ে বিশেষ আদালতের বিচারক এন কে দাভে মঙ্গলবার বলেন, ‘জরিমানা থেকে প্রাপ্ত অর্থ সংশ্লিষ্ট বিমানের কর্মী এবং যাত্রীদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হবে। পাইলট এবং কো-পাইলট ১ লক্ষ, বিমানসেবিকারা ৫০ হাজার এবং যাত্রীরা ২৫ হাজার টাকা করে পাবেন।’ বিরজুর হুমকির জেরে জরুরি অবতরণে বাধ্য হওয়া জেট এয়ারওয়েজের মুম্বই-দিল্লি ৯ডব্লিউ৩৩৯-এ পাইলট-সহ ন’জন বিমানকর্মী এবং ১১৬ জন যাত্রী ছিলেন। মামলার সরকারি আইনজীবী গীতা গোদাম্বলে এদিন বলেন, ‘আমরা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের মতো দৃষ্টান্তমূলক সাজার দাবি জানিয়েছিলাম। আদালত সেই আর্জিতে সাড়া দিয়েছে।’ এনআইএ তদন্তে জানা গিয়েছে, সংশ্লিষ্ট বিমানসংস্থার দিল্লি অফিসে বিরজুর বান্ধবী কর্মরত ছিলেন। বিরজুর ধারণা ছিল জঙ্গিহানার হুমকি এবং মর্যাদাহানির জেরে জেট তাদের দিল্লির দপ্তর বন্ধ করে দেবে! আর তাঁর বান্ধবী চাকরি হারিয়ে মুম্বই ফিরে আসবেন! সেই পরিকল্পনা মাফিক, জেটের ওই উড়ানে সওয়ার হয়েছিলেন দোষী ব্যবসায়ী। তার পরে সুযোগ বুঝে বিমানের বিজনেস ক্লাসের শৌচাগারে গিয়ে টয়লেট পেপার বক্সে ইংরেজি এবং উর্দুতে ‘হাইজ্যাকিং’য়ের হুমকিপত্র ফেলে আসেন। বিরুজু লেখেন, ‘বিমানের যাত্রীদের মধ্যে ছিনতাইকারী লুকিয়ে। সে বিমানটি ছিনতাই করে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে নিয়ে যাবে।’

২০১৭-র নভেম্বরে মামলার তদন্তের ভার এনআইএ-র হাতে দিয়েছিল কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রক। এনআইএ ২০১৬ সালের বিমান ছিনতাই প্রতিরোধ আইনের ৩(১), ৩(২) এবং ৪(বি) আইনে বিরজুর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে। জেরায় অপরাধ কবুলও করেন তিনি। তাঁর ল্যাপটপে হুমকিপত্রের ইংরেজি খসড়া এবং তা উর্দুতে তর্জমা করার ‘সফটঅয়্যারে’ও সন্ধান মেলে। ২০১৮-র ২২ জানুয়ারি ধৃত বিরজুর বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দিয়েছিল এনআইএ।

 





Source link

amulyam.ooo

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *