0

jyotiraditya sindhya: সিন্ধিয়ার সঙ্গে বৈঠকে ধুন্ধুমার, কাঠগড়ায় আজাদ – clash between jyotiraditya sindhya and gulam nabi azad


কে কে শমার্র সঙ্গে সিন্ধিয়ার বাদানুবাদের পরেও দলের প্রবীণ নেতাদের বিরুদ্ধে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের নেতা ও প্রার্থীদের ক্ষোভ যায়নি। কিছু নেতার অভিযোগ ছিল, প্রবীণ নেতারাই রাহুল গান্ধীকে ভুল বুঝিয়েছেন। বাস্তব অবস্থার কথা জানাননি। তাঁদের এই আচরণের জন্য দল ডুবেছে।

EiSamay.Com | Updated:

জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: পশ্চিম উত্তর প্রদেশে দলের হারের কারণ খুঁজতে গিয়ে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার ডাকা কংগ্রেসের বৈঠকে রীতিমতো ধুন্ধুমার হয়ে গেল। সিন্ধিয়া এই বৈঠক ডেকেছিলেন দিল্লিতে দলের গুরুদ্বার রাকাবগঞ্জ রোডের ওয়ার রুমে। সেখানে সব নেতাই মন খুলে কথা বলছিলেন। আর মন খুলতে গিয়েই বিপত্তি। কারণ দলের সিনিয়ার নেতাদের বিরুদ্ধেই তাঁদের ক্ষোভ বন্যার মতো বইতে শুরু করল। এর মধ্যে গাজিয়াবাদের নেতা কে কে শর্মা সরাসরি সিন্ধিয়ার পূর্বসূরি গুলাম নবি আজাদকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দেন।

তাঁর অভিযোগ ছিল, এর আগে গুলাম নবি কংগ্রেসের টিকিট বিলি ঠিকমতো করেননি। টিকিট বিলি নিয়ে নানা ধরনের বেনিয়ম হয়েছে। সিন্ধিয়া প্রথমে তাকে থামাতে চেষ্টা করেন। তাতে কাজ না হওয়ায় তাঁকে বৈঠক থেকে চলে যেতে বলেন। কে কে শর্মার সঙ্গে সিন্ধিয়ার উত্তপ্ত বাদানুবাদও হয়। শর্মা পরে জানান, বৈঠক ডাকা হয়েছিল সকাল দশটার সময়। কিন্তু তা শুরু হয় বেলা তিনটেতে। সেখানে তিনি যে গুলাম নবিকে নিয়ে অভিযোগ করেছেন, তা-ও জানাতে ভোলেননি।

কে কে শমার্র সঙ্গে সিন্ধিয়ার বাদানুবাদের পরেও দলের প্রবীণ নেতাদের বিরুদ্ধে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের নেতা ও প্রার্থীদের ক্ষোভ যায়নি। কিছু নেতার অভিযোগ ছিল, প্রবীণ নেতারাই রাহুল গান্ধীকে ভুল বুঝিয়েছেন। বাস্তব অবস্থার কথা জানাননি। তাঁদের এই আচরণের জন্য দল ডুবেছে। এমনকী এই দাবিও ওঠে, যাঁদের পরিস্থিতি সামলাবার দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে, দলের হার-জিতের দায়ও তাঁদের নিতে হবে। প্রবীণ নেতারা এমন সব কাজ করেছেন, যাতে দল হারছে, তারপর তারা পার পেয়ে যাচ্ছেন। এটা চলতে পারে না।

 





Source link

amulyam.ooo

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *